1. admin@englishbangla24.com : admin :
ফুলবাড়ীতে বন্যায় অচল হয়ে পানির উপর ভেসে আছে বাঁশের সাঁকো - English Bangla 24
মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ০২:৫৭ অপরাহ্ন
শিরোনাম:

ফুলবাড়ীতে বন্যায় অচল হয়ে পানির উপর ভেসে আছে বাঁশের সাঁকো

Reporter Name
  • Update Time : শুক্রবার, ১১ আগস্ট, ২০২৩
  • ২৬৪ Time View

আব্দুর রাজ্জাক, ফুলবাড়ি,কুড়িগ্রাম :  বন্যায় অচল হয়ে পানির উপর ভেসে আছে বাঁশের সাঁকো দূর্ভোগে দু’ পাড়ের হাজার হাজার মানুষ”
আব্দুর রাজ্জাক রাজ, ফুলবাড়ী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধিঃ-
তারিখঃ ১১/০৮/২০২৩ খ্রিঃ , সময়ঃ ২:৩০ মিনিট ।
গত জুলাই/২৩ ইং- এর প্রথম সপ্তাহে ভারত থেকে নেমে আসা পাহাড়ী ঢলে ও টানা বৃষ্টির ফলে কুড়িগ্রাম জেলাধীন ফুলবাড়ী উপজেলার বারোমাসিয়া নদীতে পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় খারুয়া বাজার, ঝাঁউকুটি এবং কিমাশত শিমুলবাড়ীর হাজার হাজার মানুষের যোগাযোগের একমাত্র বাঁশের সাঁকোটি পানির তীব্রস্রোতে ভেঙ্গে গিয়ে যোগাযোগের অনুপযোগী হয়ে পানির উপর পড়ে আছে । বারোমাসিয়া নদীর উপর অবস্থানরত অচল বাঁশের সাঁকোটি ১নং নাওডাঙ্গা ইউনিয়নের কিশামত শিমুলবাড়ী’র (৬ নং ওর্য়াড) আওতাভুক্ত বলে সরেজমিনে তদন্ত করে জানা গেছে। উপরোক্ত এলাকাবাসির একমাত্র বাঁশের সাঁকোটি যোগাযোগের অনুপযোগী হওয়ায় ফূলবাড়ী উপজেলা শহরের সাথে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয় পড়েছে শতশত পরিবারের ।

সরেজমিনে তদন্ত করে জানা যায় যে, এ সাঁকোর আওতাভুক্ত বারামাসিয়া নদীর দু’পাড়ের মানুষ গত ১৫ থেকে ২০ বছর আগে সাঁকোটি তাদের নিজস্ব অর্থায়নে নির্মান করেছেন এবং তখন থেকে সংস্করণ করে আসছেন । সাঁকোটি নির্মিত হওয়ায় দু’পারের মানুষের চলাচল অনেকটা সহজ হয়েছে । কিন্তু গত জুলাই মাসে পাহাড়ী ঢলে ও টানা বৃষ্টির ফলে সৃষ্ট বন্যার তীব্র স্রোতে ভেঙ্গে ও ভেসে গিয়ে দু’পারের মানুষের যোগাযোগ ব্যবস্থা বিছিন্ন হয়ে যায়। অঁচল এ সাঁকো দিয়ে পারাপারের সময় অনেকে দুর্ঘাটনার শিকার হয়েছে। বর্তমানে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হওয়ায় নানা সমস্যা দেখা দিয়েছে । স্কুলে ছেলে-মেয়েদের পাঠিয়ে দুশ্চিন্তায় থাকতে হয় শতশত পরিবারকে। বারোমাসিয়া নদীর উপর তৈরি বাঁশের সাঁকো ভাঙায় যাত্রী দূর্ভোগ বেড়েছে চরমে । এ বাঁশের সাঁকোটি দিয়ে কৃষক কৃষি পূর্ণ বাজারজাত করণ, ধান, শাকসবজি, তরিতরকারি বাজারে আনা নেওয়ার সমসা হচ্ছে। সেই সাথে স্কুল-কলেজ, মাদ্রাসার শিক্ষার্থীসহ হাজার হাজার লোকজন যাতায়াত করতে গিয়ে ভোগান্তিতে পড়েন ।দু-এক বছর পরপর একমাত্র এ সাঁকোটির এরকম বেহাল দশা হয়ে থাকে, যার ফলে দীর্ঘ ২০ বছর ধরে উক্ত এলাকার দু’পাড়ের মানুষ জীবনের এমন ঝুঁকি নিয়ে প্রতিনিয়ত পারাপার হয়ে আসছে এ সাঁকোটি দিয়ে ।
ভুক্তভোগি এলাকাবাসীর দাবী এ সাঁকোর স্থলে একটি কনক্রিট ব্রিজ নির্মানের ।
ঝাঁউকুটি গ্রামের রফিকুল ইসলাম বলেন, “আমি প্রতিদিন জীবনের ঝুঁকি নিয়ে এ সাঁকোটি পার হয়ে থাকি এবং ছেলে-মেয়কে স্কুলে পাঠাই” । কিশামত শিমুলবাড়ীর অঞ্জলী রানী দুঃখ প্রকাশ করে জানায়, “ আমাদের কপাল পোঁড়া, আমাদের গ্রামের অধিকংশ মানুষের আবাদি জমি ওপারে । কিন্তু এ সাঁকোটি অচল হওয়ায় আমরা খুব দূর্ভোগে পড়েছি ।” উক্ত এলাকার আজিউল ইসলাম এর বক্তব্যে জানা যায় যে, “এই সাঁকাটি ভাঙ্গায় এলাকাবাসি খুব কষ্টে পারাপার হয়ে থাকে, জরুরী কোন রোগী যেতেই পারে না হাসপাতালে ।”
কিশামত শিমুলবাড়ী’র (৬ নং ওর্য়াড) এর ইউপি সদস্য রাশেদুল ইসলাম বলেন, “ সাঁকোর এ বেহাল দশার স্বীকার আমিও । আমরা নিজেরাই এ সাঁকোটি ২০ বছর আগে তৈরী করেছি এবং সংস্করণ করে আসছি । কিন্তু ভুক্তভোগি এলাকাবাসীর দেওয়ালে পিঠ ঠেঁকায় আর কিছুই করতে পারছে না । আমি চেয়ারম্যান মহোদয়কে বিষয়টি অবগতি করেছি । তিনি বলেছেন, ১৫/২০ দিনের মধ্যে টিআর বিল আসলে আমি এ সাঁকোটি’র পুনঃনির্মাণের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবো ।”
রাশেদুল ইসলাম আরও বলেন, “ফুলবাড়ী উপজেলা নির্বাহী অফিসার এর সঙ্গে যোগাযোগ করে তেমন কোন লাভ হয়নি ।”
উপজেলা উপ-প্রকৌশলী আব্দুল খালেক বলেন, “ আমি নতুন যোগদান করেছি। এ  বিষয়ে আমি কিছুই জানি না, খোঁজ খবর নিব।”

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2023 English Bangla
Theme Customized BY WooHostBD